হাত পায়ের নখ কাটার নিয়ম

ইসলাম ও জীবন

পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। স্বাভাবিকভাবে মুসলমানদের সাপ্তাহিক ঈদ শুক্রবার। সেজন্য এ দিনেই হাত-পায়ের নখ কাটা হয়ে থাকে। কারণ, নখ কাটাও পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার অন্তর্ভুক্ত। তাছাড়া এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ও বটে।

আমাদের নখ কাটা যদি সুন্নত তরিকায় হয়, তাহলে আমরা ছওয়াব পাব। আসুন জেনে নিই হাত-পায়ের নখ কাটার সুন্নত পদ্ধতি।

এক. সপ্তাহে একবার (হাত পায়ের) নখ কাটা সুন্নত। দুই. শুক্রবার জুমার নামাজে যাওয়ার আগে নখ কাটা সুন্নত। (শরহুস্ সুন্নাহ, হাদিস : ৩০৯০ ও ৩০৯১)

হাতের নখ কাটার পদ্ধতি

যেকোনো ভালো কাজ ডান দিক থেকে করা সুন্নত। সে হিসেবে নখও ডান হাত ও ডান পা থেকে কাটা সুন্নত। আর কোন আঙ্গুল থেকে কাটা শুরু করবে, তা নিয়ে একটা বর্ণনা আমাদের সমাজে প্রচলিত। তবে এটা কোনো হাদিস ও সাহাবিদের আমলের মাধ্যমে প্রমাণিত নয়।

তবে অনেক বুজুর্গ বলে থাকেন যে, নিম্নে বর্ণিত নিয়মে নখ কাটা আদবের অন্তর্ভুক্ত। তা হলো- উভয় হাত (মুনাজাতের আকৃতিতে ধরে) ডান হাতের শাহাদাত আঙ্গুল থেকে আরম্ভ করে ধারাবাহিকভাবে বাম হাতের বৃ্দ্ধাঙ্গুলির নখ কেটে শেষ করা। অতঃপর সর্বশেষে ডান হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলির নখ কাটা। (ফাতওয়ায়ে শামি, ৬/৪০৬; ফাতওয়ায়ে আলমগিরি, ৫/৩৫৮)

পায়ের নখ কাটার নিয়ম

ডান পায়ের কনিষ্ঠাঙ্গুলি থেকে শুরু করে ধারাবাহিকভাবে বাম পায়ের কনিষ্ঠাঙ্গুলির নখ কেটে শেষ করা।

বিশেষ দ্রষ্টব্য : সরাসরি হাদিসের কিতাবে এসব না থাকলেও জুতা পরিধান ও জুতা খোলার হাদিসে যে কারণ দর্শানো হয়েছে, সে কারণ এ পদ্ধতিতেও পাওয়া যায়। তাই সুন্নাত বলে আকিদা না রেখে— নিয়ম হিসেবে আমল করা ভালো। ( বুখারি, হাদিস : ৫৮৫৫)

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *