সিলেট জেলা আওয়ীমলীগঃসফলতার দুই বছর।

সিলেট

জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ২০১৯ সালের ৫ই ডিসেম্বর সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বে নতুন নেতৃত্ব নিয়ে আসেন।

সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করেন।

সভাপতি হিসেবে এড.লুৎফুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এড.নাসির উদ্দিন খান এর নাম সবার সম্মুখে প্রকাশ করেন। তিনি আগামী তিন বছরের জন্য জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বভার তাদের ওপর অর্পন করেছিলেন।

এরই মাঝে বার্ধক্য জনিত কারনে এডঃ লুৎফুর রহমান মারা যান।তার স্হলাবিসিক্ত হন শফিকুর রহমান চৌধুরী।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্ব নিয়ে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জেলা কমিটিকে প্রবীণ ও নতুনের সমন্বয়ে ঢেলে সাজানোর কথা ব্যক্ত করেছিলেন। দুজনেই বলেছিলেন, তাঁরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ফেরিওয়ালা। তাই বঙ্গবন্ধুর অাদর্শকে সবার মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দিকনির্দেশনা ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কাঠামো অনুযায়ী দলের জন্য কাজ করবেন। দলকে গতিশীল এবং সুশৃঙ্খল ও সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করার জন্য কাজ করবেন। সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজি যারা করেন তাদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিবেন না। তৃণমূলকে প্রাধান্য দিয়ে আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী করার জন্য কাজ করবেন।

 

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হচ্ছে জনগণের দল। তাই দলকে আরও জনগণের কাছাকাছি নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করবেন। জনকল্যাণমুখী বিভিন্ন কাজের জন্য তাদের তৎপরতা অব্যাহত থাকবে এবং গুণগত রাজনৈতিক পরিবর্তনের মাধ্যমে দলের ভাবমূর্তি অক্ষুণ্ন রাখবেন।

দুজনেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ফেরিওয়ালা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা অনেক আস্থা নিয়ে তাদেরকে দায়িত্ব দেন। তারা অত্যন্ত ক্লীন ইমেজের মানুষ হিসেবে স্বীকৃত। দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই খুবই দক্ষতার সহিত দুজনে সমন্বয় করে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছেন যা সবার কাছে প্রশংসিত হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে সফলভাবেই তারা আরও একটি বছর পূর্ণ করেছেন। অর্থাৎ সফলতার দ্বিতীয় বছর পূর্ণ করেছেন। “ভোগে নয়, ত্যাগেই প্রকৃত সুখ ” এই বিশ্বাসকে সাথে নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগকে সারা বাংলায় একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চান এবং প্রিয় নেত্রীর কথাকে “জনগণের কাছে যান, তাদের খুঁজ খবর নেন ” বাস্তবায়ন করতে চান। তাদের সুযোগ্য নেতৃত্বে জেলা আওয়ামী লীগ সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাবে, এই প্রত্যাশা সকলের।গুণগত পরিবর্তন রাজনীতিতে আসুক, সকল অপশক্তি দূর হোক।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *