ট্যাক্স রিবেট বা কর রেয়াত কি?

ব্যবসা-বাণিজ্য

আপনি আপনার প্রদর্শিত আয়ের কিছু অংশ উক্ত আয়বর্ষে (যেটি ২৫%) বিশেষ কিছু খাতে (যেমন- ভবিষ্য তহবিল, DPS (বাৎসরিক ৬০,০০০ টাকা পর্যন্ত), সঞ্চয়পত্র, জীবন-বীমা ইত্যাদি কিছু খাতে বিনিয়োগ করলে তার ১৫% কর রেয়াত সুবিধা পাবেন, মানে সেই পরিমাণ টাকা আপনার ট্যাক্স থেকে বাদ যাবে।

সরকার করদাতাদের কিছু কিছু বিনিয়োগ এবং দানে উৎসাহিত করার জন্য ঐ সমস্ত বিনিয়োগ এবং দানের উপর ১৫% কর রেয়াত/ কর ছাড় দিয়ে থাকে, আর এই বিনিয়োগ/ দানের পরিমান ১,৫০,০০,০০ টাকা অথবা মোট করযোগ্য আয়ের ৩০% (Provident fund এ নিয়োগকর্তার দান ব্যতিত) এই দুই এর মধ্যে যেটি ছোট তার চেয়ে বেশি নয়। এই রেয়াত তার মোট প্রদেয় আয়কর হতে বাদ যাবে।

উদাহরণ হিসাবে বলা যায়, ২০২১-২০২২ আয় বর্ষে একজন ব্যক্তি যদি মাসিক ৫০,০০০ টাকা বেতন এবং ২ ঈদ মিলে যদি ১ মাসের বেতনের সমপরিমাণ বোনাস পায় তবে তার বাৎসরিক করযোগ্য আয় হয় (সম্ভাব্য) ৪,২২,০০০ এবং তার উপর প্রদেও আয়কর হয় ১৭,২০০ টাকা । এখন, ওই ব্যক্তি যদি ওই বৎসর এ সর্বোচ্চ বিনিয়োগ/ দান (সম্ভাব্য ১,২৬,৬০০ টাকা) করে থাকে তাহলে সে এর উপর সর্বোচ্চ রেয়াত সুবিধা নিতে পারে । এ ক্ষেত্রে শুধু রেয়াতের পরিমানই হয় ১৮,৯৯০ টাকা। অর্থাৎ তার নেট প্রদেও আয়কর হয় ১৭,২০০ – ১৮,৯৯০ = (১,৭৯০) টাকা৷ কিন্তু সরকারের নিয়ম অনুযায়ী কারো করযোগ্য আয় নিরপিত হলে তাকে কমপক্ষে ৫,০০০/৪,০০০/৩,০০০ টাকা কর দিতে হবে।

বিনিয়োগের উপর আয়কর রেয়াত এর পরিমাণ নির্ণয় করার নিয়ম হল-
১,৫০,০০,০০০ টাকা অথবা মোট করযোগ্য আয়ের ৩০% (Provident fund এ নিয়োগকর্তার দান ব্যতিত) অথবা প্রকৃত বিনিয়োগ এই তিনটার মধ্যে যেটি ছোট তার উপর ১৫% এর সমপরিমাণ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *