গোয়াইনঘাটে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার: ঘর পাচ্ছে ১৮ পরিবার

সিলেট

গোয়াইনঘাটে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার: ঘর পাচ্ছে ১৮ পরিবার

আব্দুল কাদির,জৈন্তা-গোয়াইনঘাট(সিলেট) প্রতিনিধিঃ সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে চা শ্রমিকদের জীবন মান উন্নয়নে ‘মডেল আবাসন’ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় উপজেলার পূর্ব জাফলং ও ফতেপুর ইউনিয়নের ৮টি চা শ্রমিক পরিবার ও ১০ টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী গৃহহীন পরিবারকে পাকা ঘর নির্মাণ করে দিচ্ছে উপজেলা সমাজ কল্যাণ পরিষদ এবং উপজেলা প্রসাশন।

চা শিল্প বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্প। জাতীয় অর্থনীতিতে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। বাংলাদেশের চা উৎপাদনের পরিমাণ বছরে প্রায় ৯৬.০৭ মিলিয়ন কেজি এবং এখান থেকে চা রপ্তানি করা হয় ২৫টি দেশে। এই চা উৎপাদনের যারা সরাসরি জড়িত তারাই চা-শ্রমিক। কিন্তু চা-শ্রমিকরা সকল নাগরিক সুবিধা ভোগের অধিকার সমভাবে প্রাপ্য হলেও তারা পারিবারিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে বৈষম্যের শিকার বলে প্রতিয়মান। তাদের প্রতি সদয় আচরণ ও তাদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠায় সচেষ্ট হওয়া পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র, সকলের দায়িত্ব। অবহেলিত ও অনগ্রসর এ জনগোষ্ঠীর মৌলিক অধিকার সংরক্ষণ, তাদের সামাজিক ন্যায় বিচার নিশ্চিতকরণ, পারিবারিক ও আর্থসামাজিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে সরকার সামাজিক নিরাপত্তা কার্যক্রমের আওতায় ‘চা-শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়ন কার্যক্রম’ গ্রহণ করেছে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার।

বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ নির্দেশনায় জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদের অর্থায়নে ‘মডেল আবাসন’ টেকসই নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে চা শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়নে গৃহহীন চা শ্রমিকদের জন্য গৃহ নির্মাণ করে দিচ্ছে বর্তমান সরকার।

গোয়াইনঘাট উপজেলা সমাজসেবা পরিষদের তত্ত্বাবধায়নে উপজেলার পূর্ব জাফলং ও ফতেপুর ইউনিয়নে ৮টি গৃহহীন চা শ্রমিক পরিবারকে প্রায় ৩২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে গৃহ নির্মাণ করে দিচ্ছে গোয়াইনঘাট উপজেলা সমাজসেবা পরিষদ এবং ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জন্য দশটি গৃহহীন পরিবারকে গৃহ নির্মাণ করে দিচ্ছে উপজেলা প্রশাসন। গোয়াইনঘাট উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শীর্ষেন্দু পুরকায়স্থের নিবিড় পর্যবেক্ষণে ও তদারকিতে ঘরগুলোর নির্মাণ কাজ প্রায় শেষের দিকে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, চা শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়নে বর্তমান সরকারের দেওয়া উপজেলার গৃহহীন চা শ্রমিকেদের নির্মিত প্রতিটা ঘরে থাকছে দুইটি বেডরুম, একটি ডাইনিং রুম, একটি রান্নাঘর ও সামনে একটি বারান্দা। প্রতিটা ঘরে নির্মাণ খরচ হচ্ছে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা। অপরদিকে উপজেলার ১০টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী গৃহহীন পরিবারের জন্য প্রতিটা ঘরে নির্মাণ খরচ হচ্ছে এক লক্ষ ৭১ হাজার টাকা। সর্বমোট এক কোটি সাত লক্ষ দশ হাজার টাকা।

গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহমিলুর রহমান বলেন, বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ বরাদ্দের প্রকল্পে চা শ্রমিক ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে তাদের এসব পাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন উপজেলার চা শ্রমিকদের জন্য উপজেলা সমাজসেবা পরিষদের ৬ টি ঘরের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষের দিকে নতুন করে আরো দু’টি ঘর বরাদ্দ হয়েছে এবং উপজেলার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ১০ টি গৃহহীন পরিবারকে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা করে পাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হচ্ছে। উপজেলার আটটি চা শ্রমিক পরিবার ও দশটি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ বরাদ্দের উপহার এসব ঘর।

এক সময়ের সুবিধাবঞ্চিত, অবহেলিত, অসহায় মানুষগুলোর ছিল না নিজস্ব স্থায়ী কোনো ঠিকানা। খাস জমি কিংবা অন্যের জমিতে আশ্রয় নিয়ে ভাঙা ঘরে থেকে পরিবার পরিজন নিয়ে দিনাতিপাত করতে হতো তাদের। কিন্তু মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণায় সারাদেশের মতো গোয়াইনঘাট উপজেলায় ভূমিহীন-গৃহহীন মানুষের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার এসব ঘর।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *